কম্পিউটার ব্যবহার করেন? তাহলে জেনে নিন ভালো রাখার উপায়

কম্পিউটার আমরা সবাই ব্যবহার করি, তাই জেনে নিই এর যত্ন। খুব সহজেই আমারা আমাদের ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন ভাল রাখতে পারি।

কম্পিউটার ব্যবহার শেখা বা নিয়মিত ব্যবহার করার ক্ষেত্রে একটিমাত্র বিষয় মনে রাখলে খুব দ্রুত সব ধরনের কাজ শিখে ফেলা সম্ভব। আর এই বিষয়টি হলো ব্যবহার করলে কখনো ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন নষ্ট হয় না। ব্যাখ্যা করলে ব্যাপারটা আরও সহজে বোঝা যাবে। কম্পিউটারে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন (অ্যাপ) ব্যবহার করা হয়, একজন ব্যবহারকারী অ্যাপে কী কী কাজ করতে পারবেন, সেটি নির্ধারিত থাকে এর বাইরে কিছু করার চেষ্টা করলে। সে ক্ষেত্রে বার্তার মাধ্যমে দেখানো হয় যে কাজটি সম্ভব নয়। আর এটি প্রায় অসম্ভব একটি ব্যাপার যে কোনো একটি অ্যাপ ব্যবহার করতে করতে কম্পিউটার বা স্মার্টফোন নষ্ট হয়ে যাবে।

যা জেনে রাখা উচিত
কম্পিউটার ব্যবহার শেখার ক্ষেত্রে কিছু বিষয় জানা থাকলে অন্য সব কাজই সহজে হয়ে যায়। নিয়মিত কাজ করার জন্য বিভিন্ন কি-বোর্ডের শর্টকাট মনে রাখলে দ্রুত কাজ করা সম্ভব হয়, যেমন কপি করা (Ctrl+C), পেস্ট করা (Ctrl+V), সেভ করা (Ctrl+S) ইত্যাদি।

অ্যান্টি-ভাইরাস সফটওয়্যার
উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য উচিত কম্পিউটারে হালনাগাদ করা অ্যান্টি-ভাইরাস ব্যবহার করা। অন্যথায় পেনড্রাইভ, মেমোরি কার্ড বা নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত অন্যান্য কম্পিউটারের মাধ্যমে ভাইরাস, ম্যালওয়্যার বা ক্ষতিকর প্রোগ্রাম চলে আসতে পারে।

ইন্টারনেট ব্যবহার করতে জানা
কম্পিউটারের অন্যান্য কাজ করার পাশাপাশি ইন্টারনেটে যুক্ত হওয়া ও ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে জানা উচিত। ইন্টারনেট হলো এমন একটি জগৎ যেটি দৈনন্দিন অনেক কাজের সঙ্গে যুক্ত। সঠিকভাবে ব্যবহার করলে নতুন বিষয় জানা ও শেখা যায়। যেকোনো বিষয় জানতে ইন্টারনেটে গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে খোঁজ করলে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ লিংক খুঁজে পাওয়া যাবে।
ইন্টারনেট মানেই ফেসবুক নয়। ফেসবুক একটি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট। উইকিপিডিয়া, ইউটিউব, খান একাডেমিসহ বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক, তথ্যসমৃদ্ধ বহু ওয়েবসাইট রয়েছে। সেসব ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন বিষয় জানা ও শেখার সুযোগ রয়েছে। তবে যোগাযোগ ও বিনোদনের জন্য ফেসবুকের ব্যবহার ক্রমশ জনপ্রিয় হচ্ছে।

একাধিক ব্যবহারকারীর জন্য একাধিক অ্যাকাউন্ট
নিয়মিত ব্যবহারের ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ কম্পিউটারে যদি একাধিক ব্যবহারকারী থাকেন, তবে নির্দিষ্ট ব্যবহারকারীর জন্য একাধিক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা উচিত। এতে প্রত্যেক ব্যবহারকারী কম্পিউটারের অ্যাপগুলো ব্যবহার করতে পারবেন এবং নিজের পছন্দ অনুযায়ী সেটিংস নির্ধারণ করতে পারবেন। ব্রাউজারের বুকমার্ক, ব্যক্তিগত কাজের বিভিন্ন ফাইলও আলাদাভাবে মাই ডকুমেন্টস ফোল্ডারে সংরক্ষণ করা যাবে।

পরিষ্কার স্থানে রেখে ব্যবহার
কিছুদিন আগে পর্যন্তও এমন ধারণা ছিল যে কম্পিউটার সব সময় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে রাখতে হবে। এটি সম্পূর্ণ সঠিক না হলেও অবশ্যই ধুলা-ময়লামুক্ত স্থানে রাখা উচিত। এর অন্যতম কারণ হলো কম্পিউটার ব্যবহার করার সময় এটি যেন বেশি উত্তপ্ত না হয়ে যায়, সে জন্য কুলিং ফ্যান চলতে থাকে। ধুলা-ময়লা জমে থাকলে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের যন্ত্রাংশগুলোর তাপ পরিবহনক্ষমতা কমে যেতে পারে এবং কম্পিউটারটি অকার্যকর হয়ে যেতে পারে।

চার্জার লাগিয়ে ল্যাপটপ ব্যবহার করা
ল্যাপটপ ব্যবহার করার সময় যতটা সম্ভব চার্জার যুক্ত করে ব্যবহার করা উচিত। চার্জার যুক্ত আছে তাই সারাক্ষণ চার্জ হচ্ছে এবং অতিরিক্ত চার্জ হয়ে নষ্ট হয়ে যেতে পারে, এমন ধারণা রয়েছে অনেকের। এটি সঠিক নয়, কারণ ল্যাপটপের চার্জ নিয়ন্ত্রণের জন্য আলাদা সার্কিট থাকে, যেটি নির্ধারণ করে কখন চার্জ হবে আর কখন হবে না। ল্যাপটপে যে ধরনের ব্যাটারি যুক্ত থাকে, সেগুলো সম্পূর্ণরূপে ডিসচার্জ বা চার্জ শেষ করে ফেলা উচিত নয়। দীর্ঘ দিনের জন্য কম্পিউটার ব্যবহার করা হবে না জানা থাকলে সম্পূর্ণরূপে চার্জ দিয়ে তবেই যথাযথভাবে সেটি রাখা।

Comments

comments

" প্রযুক্তির সর্বশেষ আপডেট পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন "

Related Post